কাজল আগারওয়াল
অভিনেত্রী, ভারত
টেম্পার (২০১৫), ইয়াভাডু (২০১৪), জিল্লা (২০১৪), থুপাক্কি (২০১২), সিংহাম (২০১১), মি. পারফেক্ট (২০১১), ডারলিং (২০১০), মাগাধিরা (২০০৯), আর্য ২ (২০০৯)

 

কাজল আগারওয়াল ভারতীয় অভিনেত্রী। মূলত দক্ষিণের সিনেমায় অভিনয় করেন। তেলেগু ও তামিল সিনেমাতে তাঁকে বেশি দেখা যায়। বেশ কয়েকবার ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কারে মনোনীত হয়েছেন। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন বিজ্ঞাপন ও পণ্যের শুভেচ্ছা দূত হয়েছেন।
 
প্রাথমিক জীবন
মুম্বাইয়ের একটি পাঞ্জাবী পরিবারে জন্ম কাজলের। ১৯৮৫ সালের ১৯ জুন জন্ম। তাঁর বাবা বিনয় আগারওয়াল একজন টেক্সটাইল ব্যবসায়ী। তার মাও একজন ব্যবসায়ী এবং কাজলের ম্যানেজার। কাজলের ছোট বোন নিশা আগারওয়ালও অভিনেত্রী। তামিল, তেলেগু ও মালায়লাম সিনেমায় তিনি অভিনয় করেন। কাজল মুম্বাই শহরেই পড়ালেখা শুরু করেন। কলেজে পড়ার সময়ই তিনি অভিনয়ের দিকে ঝুঁকে যান। তাঁর অসাধারণ সৌন্দর্য্যের জন্য খুব সহজেই নজরে আসেন পরিচালক ও প্রযোজকদের।

শিক্ষা
পড়ালেখা শুরু হয় সেন্ট. অ্যানিস হাই স্কুলে। এরপর পড়েন জয় হিন্দ কলেজে। ¯œাতকে ভর্তী হন কিষণচন্দ চেল্লারাম কলেজে। পড়ালেখা করেন গণ যোগাযোগে। বিশেষ বিষয় ছিল মার্কেটিং ও পণ্য বিজ্ঞাপন।

সিনেমা জীবন

কাজল ২০০৪ সালে হিন্দি সিনেমা কিউ…! হো গায়া না ছবি দিয়ে অভিনয়ে পা রাখেন। ছবিতে তিনি একটি পার্শ্বচরিত্র করেন। চরিত্রের নাম ছিল দিয়ার বন্ধু। দিয়া ছিল ঐশ্বরিয়ার চরিত্র।
তিনি পরে নাম লেখান পি. ভারতিরাজের তামিল সিনেমা বোমালাট্টাম-এ। এটা তামিল ভাষার প্রথম সিনেমা। কিন্তু সিনেমাটি পিছিয়ে যায়। কাজলের তেলেগু প্রথম সিনেমা ছিল লক্ষ্মী কাল্যাণাম (২০০৭)। এই সিনেমাতে প্রথম নায়িকা হিসেবে তাঁকে দেখা যায়। কিন্তু খুব একটা মেলে ধরতে পারেননি নিজেকে। তেলেগু সিনেমা চান্দামামা তাঁকে প্রথম সফলতা এনে দেয়।

২০০৯ সালে কাজল নিজের জাত চেনান। মাগাধিরা সিনেমাতে অভিনয় করে বক্স অফিসে ঝড় তোলেন। ভক্ত মনেও নিজের নামটি পাকা পোক্ত করে ফেলেন। চলচ্চিত্রটি তেলেগু সিনেমার ইতিহাসে অন্যতম ব্যবসাসফল সিনেমা। সিনেমায় তাঁকে ইন্দু চরিত্রে দেখা যায়। যা তেলেগু সিনেমাতে একটি কাল্ট চরিত্র হিসেবে দাঁড়িয়ে যায়। এরপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি। কাজল আগারওয়াল একের পর এক জনপ্রিয় সিনেমা উপহার দেন। তিনি হয়ে উঠেন ভারতীয় সিনেমার তারকা নায়িকা।

একেরপর এক তেলেগু সিনেমাতে অভিনয় করতে থাকেন কাজল। ডারলিং (২০১০), বৃন্দাভানাম (২০১০), মি. পারফেক্ট (২০১১), বিজনেসম্যান (২০১২), নায়ক (২০১৩), বাদশাহ (২০১৩), গোবিন্দুদু আন্দারিভাদেলে (২০১৪), টেম্পার (২০১৫) ও খিলাড়ি নং ১৫০ (২০১৭) সিনেমাগুলো করেন।

সিনেমা
টেম্পার (২০১৫), গোবিন্দুদু আন্দারিবাদেলে (২০১৪), ইয়াভাডু (২০১৪), জিল্লা (২০১৪), অল ইন অল আজাগু রাজা (২০১৩), বাদশাহ (২০১৩), স্পেশাল ২৬ (২০১৩), থুপাক্কি (২০১২), মাতরান (২০১২), বিজনেস ম্যান (২০১২), ধাদা (২০১১), সিংহাম (২০১১), বীরা (২০১১), মি. পারফেক্ট (২০১১), বারিন্দাভানাম (২০১০), নান মহান আল্লা (২০১০), ডারলিং (২০১০), ওম শান্তি (২০১০), আর্য ২ (২০০৯), গণেশ যাস্ট গণেশ (২০০৯), মাগাধিরা (২০০৯), মোধি ভিল্লায়াধু (২০০৯), বোমালাট্টাম (২০০৮), সরোজা (২০০৮), আতাদিস্তা (২০০৮), পাঝানি (২০০৮), পাউরুদু (২০০৮), চান্দামামা (২০০৭), লক্ষ্মী কল্যাণাম (২০০৭) ও কিউ…! হো গায়া না (২০০৪)।